ডাকসু নির্বাচন নিয়ে ইতিবাচক ছাত্রদল

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) ও হল সংসদ নির্বাচনের উপযুক্ত পরিবেশ তৈরির জন্য নির্বাচন তিন মাস পেছানো ও পুনঃ তফসিল ঘোষণার দাবি জানালেও নির্বাচনে অংশগ্রহণের ব্যাপারে এখনো ইতিবাচক জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল। দলীয় মনোনয়ন চূড়ান্ত করার পরই ছাত্রদলের পক্ষ থেকে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করা হবে বলে জানিয়েছেন সংগঠনটির কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসান। তবে কার্যকর ডাকসু বাস্তবায়নে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের আন্তরিকতা চান তাঁরা।

বুধবার ষষ্ঠ দিনের মতো মধুর ক্যানটিনে যান ছাত্রদলের নেতা-কর্মীরা। বেলা ১১টা থেকে পৌনে ২টা পর্যন্ত তাঁরা সেখানে অবস্থান করেন। অন্যদের মধ্যে সেখানে ছিলেন ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি আল মেহেদী তালুকদার ও সাধারণ সম্পাদক আবুল বাসার সিদ্দিকী।

বেলা একটার দিকে মধুর ক্যানটিনে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসান। এক প্রশ্নের জবাবে আকরাম বলেন,‘বর্তমান পরিবেশে ডাকসু নির্বাচন হলে সেটা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪৩ হাজার শিক্ষার্থীর ডাকসু হবে না, সেটা হবে ছাত্রলীগের ডাকসু শাখা। তাই আমরা প্রথম থেকেই নির্বাচনের পরিবেশ তৈরির দাবি জানিয়ে আসছি৷ প্রশাসনের কাছে আমাদের ছয় দফা দাবি মেনে নিয়ে কার্যকর ডাকসু নির্বাচন করার প্রত্যাশা করছি। কার্যকর ডাকসু বাস্তবায়নে আমরা প্রশাসনের আন্তরিকতা প্রত্যাশা করছি।’
ছাত্রদল যেকোনো সময়ই নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে প্রস্তুত, উল্লেখ করে ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘দলীয় মনোনয়ন চূড়ান্ত করার পরই আমরা মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করব। তবে কবে থেকে সংগ্রহ করব, সেটি এখনই বলতে পারছি না। আমরা প্রত্যাশা করছি পুনঃ তফসিল ঘোষণা করা হবে এবং সময় বাড়ানো হবে। আমরা ডাকসু নির্বাচন চাই। প্রত্যাশার জায়গায় আমরা ইতিবাচক থাকতে চাই।’

মধুর ক্যানটিনে ছাত্রদলের ষষ্ঠ দিনটিও ছিল নির্বিঘ্ন। বামপন্থী ছাত্রসংগঠনগুলোর নেতাদের সঙ্গে ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদককে গল্প করতে দেখা যায়। নেতা-কর্মীরা ক্যানটিনে চা পান করেন এবং নিজেদের মধ্যে আড্ডা দেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *