আতিকের পক্ষে একাট্টা ব্যবসায়ীরা

মঙ্গলবার ঢাকার মহাখালীর রাওয়া কনভেনশন সেন্টারে মতবিনিময় সভার আয়োজন করে বিজিএমইএ, বিকেএমইএ ও বিটিএমএ।

ব্যবসা-বাণিজ্যের সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে এই সভা আয়োজন করার কথা প্রথমে জানানো হলেও অনুষ্ঠানে বক্তব্যে অন্তত ১৫ জন ব্যবসায়ী নেতাই কথা বলেন ডিএনসিসি নির্বাচনে আতিককে জয়ী করার প্রয়োজনীয়তা নিয়ে।এই সভায় ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআইর সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন, জ্যেষ্ঠ ভাইস চেয়ারম্যান শেখ ফজলে ফাহিম, সাবেক সহ সভাপতি জসিম উদ্দিন, বিজিএমইএর সাবেক সভাপতি আব্দুস সালাম মুর্শেদী, বর্তমান সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান, সহ-সভাপতি এস এম মান্নান কচি, শহীদুল আজিম, এফবিসিসিআই নেতা রেজাউল করিম রেজনু, বিজিএমইএ নেতা মাহমুদুস সামাদ চৌধুরী, হারুনুর রশিদ, বিকেএমইএ’র প্রথম সহ-সভাপতি মনসুর আহমেদ, বিটিএমএ’র সভাপতি মোহাম্মদ আলী খোকন বক্তব্য রাখেন।

তারা সবাই ঢাকা উত্তরে মেয়র পদে উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আতিককে বিজয়ী করার আহ্বান জানান। নির্বাচিত হলে আনিসুল হকের মতোই আতিক নগরের ‘সেবক’ হয়ে উঠবেন বলে প্রত্যাশা করেন তারা।

আনিসুল হকের মৃত্যুতে আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি এই উপনির্বাচন হচ্ছে। আনিসুল হকের মতোই বিজিএমইএ সভাপতি ছিলেন আতিক।এফবিসিআই সভাপতি মহিউদ্দিন বলেন, “বিজিএমইএর সভাপতি থাকাকালে রানা প্লাজা দুর্ঘটনা, তাজরীন ফ্যাশনে অগ্নিকাণ্ডের সময় সঙ্কট সমাধানে দিনরাত পরিশ্রম করে নিজের যোগ্যতা স্বাক্ষর রেখেছেন আতিকুল

উপ নির্বাচনে জয়ী হতে পারলে নগরপিতা হিসাবে নয়, সেবক হিসাবে তিনি দায়িত্বপালন করবেন। সাবেক মেয়র আনিসুল হকও নগরের সেবক হিসাবে নিজেকে প্রমাণ করে গেছেন।”
বিজিএমইএ সভাপতি সিদ্দিকুর বলেন, “দীর্ঘ ২৫ বছর ধরে পোশাক খাতের নেতৃত্বে আছেন আতিকুল ইসলাম। এতো দিনে তার কোনো খারাপ ইমেজ নেই।

নির্বাচনে তাকে সহযোগিতা করতে আমরা তার পাশে আছি। আমাদের দায়িত্ব হবে ভোট কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দেওয়া।”

এফবিসিসিআইয়ের জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি শেখ ফাহিম উপস্থিত ব্যবসায়ী নেতাদের কাছে আতিকুল ইসলামের পক্ষে ভোট চান। সবাই হাত উঁচিয়ে আতিককে ভোট দিতে কেন্দ্রে যাওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন।

বিজিএমইএ’র সদস্য মাহমুদুস সামাদ চৌধুরী বলেন, ‘আতিক ভাইকে আওয়ামী লীগ নৌকা প্রতীক দিয়েছে। নৌকা আমাদের স্বাধীনতার প্রতীক। আশা করছি ভোটের দিন আপনারা কেন্দ্রে গিয়ে আতিক ভাইয়ের পক্ষে ভোট দিবেন।’

বিজিএমএইএর সাবেক সভাপতি সালাম মুর্শেদী বলেন, “আমার বন্ধু আতিকুল ইসলামকে আমরা জয়ী করব। আপনাদের (ব্যবসায়ী) কাছে অনুরোধ থাকবে নিজেরা গিয়ে যেন ভোট কেন্দ্রে ভোট দিই। অন্যকে অনুপ্রাণিত করি। দায়িত্ব পালন করি।’সভায় মেয়র প্রার্থী আতিকুল ইসলাম বলেন, “নির্বাচিত হলে অটোমেশন পদ্ধতিতে দেওয়া হবে নাগরিক সেবা।

আমার ভাই আনিসুল হক যেভাবে নগরবাসীর সমস্যার সমাধানের কাজে হাত দিয়েছেন তার রেখে যাওয়া পথই অনুসরণ করবো। জন্ম নিবন্ধন, ডেথ সার্টিফিকেট, কর ব্যবস্থাসহ সকল নাগরিক সেবায় আটোমেশন করা হবে।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *