ভারত হামলা করলে পাকিস্তানও জবাব দেবে: ইমরান

ভারতীয় রাজনীতিকরা আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের কথা ভেবেই ‘পাকিস্তানে হামলা’র বিষয়টি সামনে আনছেন বলেও অভিযোগ করেছেন তিনি।“যদি তারা এ বিষয়ে (হামলা) সিরিয়াস হয়, তাহলে একটি বিষয় সুস্পষ্টভাবে নোট করে নিন- পাকিস্তান পাল্টা জবাবের বিষয়টি কেবল ভাবনাতেই সীমাবদ্ধ রাখবে না, পাল্টা জবাবই দেবে পাকিস্তানের হাতে তখন অন্য কোনো বিকল্পই খোলা থাকবে না,” বলেছেন তিনি।কাশ্মীর নিয়ে তীব্র উত্তেজনার মধ্যে এক ভিডিও বার্তায় গত বছর ক্ষমতায় আসা ইমরান এ সুস্পষ্ট হুঁশিয়ারি দিলেন বলে জানিয়েছে এনডিটিভি।

বৃহস্পতিবার পুলওয়ামায় জয়েশ-ই-মোহাম্মদের চালানো আত্মঘাতী হামলাটিকে গত কয়েক দশকে ভারতীয় নিরাপত্তারক্ষীদের ওপর চালানোর ‘সবচেয়ে ভয়াবহ’ হামলা হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে।হামলার পর থেকেই ভারত পাকিস্তানভিত্তিক জয়েশ-ই-মোহাম্মদের প্রধান মাসুদ আজহারের নাম জাতিসংঘের ‘বৈশ্বিক সন্ত্রাসীর তালিকায়’ ঢোকানোর জোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

ইসলামাবাদকে বিশ্ব থেকে ‘পুরোপুরি একঘরে’ করার জন্য নয়া দিল্লির কূটনৈতিক তৎপরতা অব্যাহত আছে। ভারত ১৯৯৬ সালে পাকিস্তানকে দেওয়া ‘মোস্ট ফেভারড নেশনের’ তকমাও তুলে নিয়েছে।

দুই দেশের এ মুখোমুখি অবস্থানের মধ্যেই চলতি সপ্তাহে দেশ দুটি সফর করছেন সৌদি আরবের ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান।

“কোনো প্রমাণ না দিয়ে এবং এ হামলায় আমাদের লাভ কি- সেসবকিছু চিন্তা না করেই পাকিস্তানকে দোষারোপ করছে ভারত।

সৌদি ক্রাউন প্রিন্সের এ অতি গুরুত্বপূর্ণ সফরের সময় কোনো বোকাও কি এ ধরনের অন্তর্ঘাতমূলক কর্মকাণ্ডের চেষ্টা চালাবে?,” বলেন ক্রিকেটার থেকে রাজনীতিক হওয়া ইমরান।

পাক প্রধানমন্ত্রী ‘প্রত্যাখ্যান’ করলেও নয়া দিল্লি দীর্ঘদিন ধরেই ভারতে সন্ত্রাসী হামলার পেছনে পাকিস্তানের মদদ আছে বলে অভিযোগ করে আসছে। মাসুদ আজহার ও হাফিজ সাঈদের মতো ‘সন্ত্রাসীরা’ পাকিস্তানে অবাধে বিচরণ করে বলেও দাবি তাদের।

ইমরান কাশ্মীরে সন্ত্রাসী হামলা নিয়ে ভারতের আক্রমণাত্মক মনোভাবেরও কড়া সমালোচনা করেন।

“পাকিস্তান স্থিতিশীলতার দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। কেন আমরা এটি (কাশ্মীরে হামলা) করতে যাব? পাকিস্তান যে জড়িত এ বিষয়ে যদি কার্যকর কোনো গোয়েন্দা তথ্য থাকে, তাহলে তা আমাদের দিন। আমি নিশ্চয়তা দিয়ে বলছি- আমরা ব্যবস্থা নেব।না, চাপের মুখে নয়। ব্যবস্থা নেব, কারণ সেসব দোষীরা তখন পাকিস্তানের শত্রু বলেই বিবেচিত হবে,” বলেন তিনি।

সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে পাকিস্তানেরও অবস্থান ‘শক্ত’ বলেন, ইমরান।“যুদ্ধ শুরু করা সহজ,শেষ করা কঠিন। ভারতের কাছে আমি জানতে চাই- তারা কি অতীতেই বাস করতে চায়? এখান থেকে গিয়ে কেউ সন্ত্রাসী কাজ করলে আমাদের স্বার্থ হাসিল হয় না, যেমনটা হয় না কেউ এখানে এসে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চালালেও,” বলেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *